সড়ক দুর্ঘটনায় শিক্ষার্থীর মৃত্যু, কমে থামবে এই মিছিল

সড়ক দুর্ঘটনায় শিক্ষার্থীর মৃত্যু এখন নিয়মিত ঘটে যাওয়া ঘটনা গুলির একটি। বাংলাদেশের সড়কগুলোতে সড়ক দুর্ঘটনায় একটি নিয়মিত ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। গত রবিবার বেলা দুইটা 30 মিনিটের দিকে রাজধানীর তেজগাঁও সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ছাত্র আলী হোসেন একটি মাইক্রোবাসের ধাক্কায় মারা গিয়েছেন। 

এ ঘটনায় পর পর থেকেই পুলিশ তদন্তে নেমেছিল ঘাতক মাইক্রোবাসটিকে ধরতে। সোমবার সকালে ঢাকার আশুলিয়ার  বিশমাইল এলাকা থেকে ঘাতক মাইক্রবাস সহ চালক জিয়াউল হককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। 

এর আগে রবিবার মাইক্রোবাসের ধাক্কায় ছাত্র আলিহোসেন রাস্তার মধ্যে গুরুতর ভাবে আহত হয় কাতরাচ্ছিলেন। এ সময় চালক জিয়াউল হক গারিনা থামিয়েই চলে যায়। রাস্তা আশেপাশে থাকা পথচারী এবং পুলিশের সহায়তায় তাকে হাসপাতালে নেয়া হলেও শেষ রক্ষা হয়নি এই ছাত্রের। হাসপাতালে নেয়ার কিছুক্ষণ পরেই চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

যখন এই দুর্ঘটনাটি হয়েছিল সেসময় ছাত্রটি রাজধানীর শিল্পাঞ্চল এলাকায় বিজি প্রেসের সামনে রাস্তা পার হয়েছিলেন। ঠিক তখনই অপর দিক থেকে ঘাতক মাইক্রোবাসটি তাকে আঘাত করে চলে যায়। আলী হোসেন ছিলেন রাজধানীর তেজগাঁও সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্র। এ ঘটনার পর তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। 

সিঙ্গাপুরের ৪২তম শীর্ষ ধনী বাংলাদেশি আজিজ খান, কিভবে হলেন সম্পদশালী

পুলিশ তাদের আনুষ্ঠানিক ব্রিফিংয়ে জানিয়েছে যে মাইক্রোবাসটি ধারা আলী হোসেন কে আঘাত করা হয়েছে সেটি এখন রাজধানী শিল্পাঞ্চল থানায় আটক রয়েছে। পুলিশের ভাষ্যমতে তাদের তদন্ত করার বিষয় হচ্ছে কেন এই ছাত্রটিকে চালক আহত করার পর এই অবস্থায় রেখে চলে গেলেন। 

এছাড়াও পুলিশ জানিয়েছে গাড়িচালকের স্পিড লিমিট কত ছিল সে বিষয়ে তারা লক্ষ্য রাখবেন। মূলত পুলিশ চালককে গ্রেপ্তার করেছিল সিসিটিভি ফুটেজ গাড়ির নাম্বার ট্র্যাক করে।

এছাড়াও পরবর্তীতে পুলিশ কি কি কার্যক্রম পরিচালনা করবে এই মামলার তদন্তে সেটিও তারা এখনো পর্যন্ত খোলাসা করেননি। মূলত থানায় মামলাটি হয়েছে সে মামলায় চালককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। 

বাদীপক্ষ হিসেবে আলী হোসেনের পরিবার এ মামলা চালাতে পারবে। এছাড়াও পুলিশ বলছে এই ধরনের মামলার আসামিদের যে ধরনের শাস্তি হয়ে থাকে চালককে সে ধরনের শাস্তির আওতায় নেয়া হবে। এদিকে রাজধানীতে রাস্তা অবরোধ করে আন্দোলন করেছে আলী হোসেনের সহপাঠীরা।

আমরা সকলেই জানি সড়ক দুর্ঘটনায় ছাত্রদের মৃত্যুর জন্য নানান সময়ে আন্দোলন করা হয়েছে। তবে কোনোভাবেই শিক্ষার্থীদের মৃত্যুর পরিসংখ্যান কমানো সম্ভব হচ্ছে না।

নিরাপদ সড়কের দাবিতে বরাবর শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করে আসছে। এতে কোন ধরনের কাজ হচ্ছে না। ফিটনেসবিহীন গাড়ি,  লাইসেন্স ব্যতীত চালকের সংখ্যা দিন দিন আরো বেশি বাড়ছে।এসকল দাবিতে রাস্তা অবরোধ করেছিল রাজধানীর তেজগাঁও সরকারি বিজ্ঞান বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

বিকাশ থেকে টাকা তোলার নিয়ম | কমল বিকাশ এটিএম ক্যাশ আউট চার্জ

এছাড়াও ইতিমধ্যে আলী হোসেনের মৃত্যুর ভিডিও ফুটেজ অনলাইন মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।  সামাজিক মাধ্যমে আলী হোসেনের হত্যার বিচার সকলে চাইছেন। 

নিয়মিত সঠিক খবর সঠিক সময়ে পেতে জয়েন করুন আমাদের ফেসবুক পেজ।

Leave a Comment