সিঙ্গাপুরের ৪২তম শীর্ষ ধনী বাংলাদেশি  আজিজ খান, কিভবে হলেন সম্পদশালী

সঠিক নিয়মে কর্ম করলে সফলতা আসবেই। তার কিছু জ্বলন্ত উদাহরণ রয়েছে বাংলাদেশ। শুধু বাংলাদেশের শীর্ষ ধনী কেন আন্তর্জাতিক ভাবে স্বীকৃত ধনী ব্যক্তি রয়েছে বাংলাদেশে। 

সম্প্রতি সিঙ্গাপুরে তেমনি একটি খবরের শিরোনাম হয়েছেন বাংলাদেশি আজিজ খান। সিঙ্গাপুরের শীর্ষ 50 জন ধনী ব্যক্তির তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। সেই তালিকায় উঠে এসেছে বাংলাদেশর বিদ্যুৎ খাতে বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান সামিট পাওয়ারের স্বত্বাধিকারী আজিজ খান এর নাম।

গতকাল বুধবার প্রকাশিত মার্কিন সাময়িকী ফোর্বস পত্রিকায় এবছরে সিঙ্গাপুরের 50 ধনীর তালিকা প্রকাশিত হয়েছে। 

এই তালিকায় বাংলাদেশের সামিট গ্রুপের প্রধান আজিজ খান রয়েছে ৪২ নম্বরে। আপনি জেনে আনন্দিত হবেন যে বাংলাদেশের বিদ্যুৎ খাতে বিনিয়োগকারী সবচেয়ে বড় কোম্পানি সামিট পাওয়ারের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান তিনি। 

সিঙ্গাপুরের ৪২তম শীর্ষ ধনী বাংলাদেশির টাকার পরিমান

এক ডলার সমান 95 টাকা ধরে হিসাব করলে বাংলাদেশি মুদ্রায় আজিজ খানের সম্পত্তির পরিমাণ দাঁড়ায় সারে ৯ হাজার কোটি টাকা।  

বিখ্যাত ফোবর্সের হিসাব অনুসারে এবারি প্রথম আজিজ খান সিঙ্গাপুরের বিলিয়ন ডলার সম্পদশালী ব্যক্তিদের ক্লাবে প্রবেশ করেছেন। বিগত 2021 সালের হিসাব অনুযায়ী আজিজ খানের সম্পদের পরিমাণ ছিল 99 কোটি US ডলার। 

মূলত 2019 সালের থেকে এখন পর্যন্ত আবিষ্কারের সম্পদের পরিমাণ ধারাবাহিকভাবে বেড়েই চলেছে।  তাতেই তিনি এ বছরও সিঙ্গাপুরের শীর্ষ ধনীদের তালিকায় আছেন এবং 42 নম্বর স্থান অর্জন করেছেন। 

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মোহাম্মদ আজিজ গান প্রথম 2018 সালে সিঙ্গাপুরের 50 জন শীর্ষ ধনীর তালিকায় স্থান করে নেন। তিনি 2018 সালে ফোর্বসের প্রকাশিত তথ্যমতে 34 নম্বরে অবস্থান করছিলেন ধনীদের তালিকায়। 2018 সালের ফোর্বসের হিসাব অনুযায়ী আজিজ খান ও তার পরিবারের সম্মিলিত মোট সম্পদের পরিমাণ ছিল 91 কোটি ডলার। 

ফোর্বসের তথ্যমতে মোহাম্মদ আজিজ খান গত 12 বছর ধরে সিঙ্গাপুরে অবস্থান করছেন এবং সিঙ্গাপুরের নাগরিকত্ব নিয়ে রেখেছেন এবং তার কোম্পানিটি সামিট ইন্টারন্যাশনাল সিঙ্গাপুরে রেজিস্টার করা আছে, তাই তার কম্পানি বাংলাদেশ থাকলেও তার সম্পত্তির হিসাব সিঙ্গাপুরি ডলারে করা হয়ে থাকে। 

অনলাইনে কিভাবে টাকা আয় করা যায়

এছাড়াও সামিট পাওয়ারের আরো কিছু অঙ্গ সংগঠন বাংলাদেশ রয়েছে সেগুলো থেকে সামিট পাওয়ার আয় করে থাকে। প্রথমে একটি ট্রেডিং কোম্পানি হিসেবে আত্মপ্রকাশ করলেও বর্তমানে বাংলাদেশের বিদ্যুৎখাতে নিজেদের অবস্থান শক্ত করেছে।

বাংলাদেশের নতুন নতুন খবরা-খবার জানতে জয়েন করুন আমাদের ফেসবুক পেইজে।

Leave a Comment