পুলিশের অনন্য নজির, দেখল বাংলাদেশের জনগণ

নানাবিধ কারণে বর্তমানে বাংলাদেশ পুলিশের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে, তবে পুলিশের অনন্য নজির ও আছে। কিছুদিন আগেও 71 টিভিতে খবরের শিরোনাম হয়েছিলেন ঢাকার একটি থানার পুলিশ এসআই। বেআইনিভাবে একজন পথচারীর পকেটে নেশাজাতীয় দ্রব্য রেখে তাকে ফাঁসানোর চেষ্টা করা নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা হয়েছে পুলিশ বাহিনীর।

তবে পুলিশ বাহিনীর সকল সদস্য যে খারাপ নয় তারা এখনও যে ভাল কাজ করেন এমন একটি নজিরও পাওয়া গেল সম্প্রতি। সদ্য শুরু হওয়া এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী এক শিক্ষার্থীকে সাহায্য করে এক অনন্য নজির স্থাপন করেছেন বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনী। 

পুলিশের অনন্য নজির টি কি?

গত 14 তারিখ বুধবার অনুষ্ঠিত হয় এসএসসি প্রথম পরীক্ষাটি। করোনার কারণে গত দু’বছর এসএসসি এবং এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের সংক্ষিপ্ত আকারে পরীক্ষা হলেও এবারে সবগুলো বিষয়ে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। 

তবে প্রথম দিনে ঘটে গেল এক দারুন ঘটনা। প্রথম পরীক্ষাতে রাজধানীর উদয়ন স্কুলের শিক্ষার্থী মিম ভুল করে অন্য কেন্দ্রে পরীক্ষা দিতে চলে যায়। তার পরীক্ষার কেন্দ্র ছিল উত্তরা গার্লস স্কুল কিন্তু সে ভুল করে উত্তরা হাই স্কুলে চলে যায়। 

সেসময় হাতে সময় খুবই কম ছিল পরীক্ষা শুরু হওয়ার। সে সময় তাকে সাহায্য করতে এগিয়ে আসে উত্তরা পশ্চিম থানা পুলিশ। পুলিশের গাড়িতে করেই তাকে সঠিক কেন্দ্রে সময়মতো পৌঁছে দেওয়া হয়।

যানজট কিংবা নানান কারণে সময়মতো কোন শিক্ষার্থী যদি পরীক্ষার কেন্দ্রে আসতে না পারে তাহলে তারা নিজস্ব গাড়িতে করে তাদেরকে পৌঁছে দেয়ার একটি পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন। উত্তরা পশ্চিম থানায় থেকে এই উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। এবং এটির নাম দেয়া হয়েছে সাপোর্ট। 

তারা এই নামে একটি কেন্দ্র খুলেছে এবং নানান কারণে শিক্ষার্থীরা যখন অসুবিধা করছে সে সময় তারা এগিয়ে যাচ্ছে।

পরীক্ষার প্রথম দিনে তারা অন্ততপক্ষে 15 জন শিক্ষার্থীকে কেন্দ্রে পৌঁছে দিয়েছে। আমরা সকলে জানি উত্তরা কিংবা ঢাকার মূল শহর গুলোতে কতটা যানজট প্রবন থাকে। 

যার কারণে শিক্ষার্থীদের নানান অসুবিধায় পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সেই কথা মাথায় রেখেই সাপোর্ট নামের এই কেন্দ্রটি খোলা হয়েছে বলে জানিয়েছেন উত্তরা পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ মহসিন।

ইসলামে ঘুমানোর সঠিক নিয়ম কি?

তারা শিক্ষার্থীকে সাহায্য করার জন্য বিভিন্ন জায়গায় মোটরসাইকেল রেখেছে। যাতে করে শিক্ষার্থীদের যেকোনো সাহায্যে তারা এগিয়ে যেতে পারে।

এই উদার পুলিশ আরো জানান,  শিক্ষার্থীদের মধ্যে কেউ যদি বাসায় রেজিস্ট্রেশন কার্ড কিংবা প্রবেশপত্র ফেলে আসে তবুও সেটি তারা আনার ব্যবস্থা করছেন।

এছাড়াও এ পুলিশের পক্ষ থেকে শিক্ষার্থীদের নানান কথা চিন্তা করে কলম, পানি এবং টিস্যু বিতরণ করা হয়েছে।

বাংলাদেশ পুলিশের সম্পর্কে নানান ধরনের অভিযোগ থাকলেও এবারের এসএসসি পরীক্ষার সময় নতুন উদ্যোগে পুলিশকে নতুনভাবে চিনলো বাংলাদেশ।

পুলিশের এমন অনন্য নজির দেখে হতবাক বাংলাদেশে জনগণ। কেউ ভালো কাজ করলে সকলকে তার প্রাপ্য সম্মানটুকু দিতে কৃপণতা করা যাবে না।

কি করলে জীবনে সুখী হওয়া যায়? আপনি জানেন কি

পুলিশের অনন্য নজির কি?

এবারে পুলিশের করা অনন্য নজির টি হচ্ছে ভুল করে অন্য পরীক্ষা কেন্দ্রে পৌঁছে যাওয়া এসএসসি পরীক্ষার্থীকে সঠিক কেন্দ্রে সময় মত নিজেদের গাড়িতে করে পৌঁছে দেওয়া।

উপসংহার

আমাদের সকলেরই উচিত হবে সকল পুলিশ সদস্যকে একই ক্যাটাগরিতে না ভেবে এখনো ভালো পুলিশ সদস্য রয়েছেন তাদের প্রতি যথার্থ সম্মান প্রদর্শন করা। 

একজন খারাপ সদস্যের কারণে পুরো পুলিশ ডিপার্টমেন্ট বদনাম হতে পারে না তারা আমাদের জন্য কাজ করে যাচ্ছে দিন তাদের প্রতি আমাদের কিছু কর্তব্য রয়েছে।

আসুন তাদেরকে ভাল চোখে দেখে এবং তাদেরকে ভালো করার জন্য সাহায্য করি।

ইন্টারনেট থেকে সঠিক তথ্য সঠিক সময়ে পেতে রেগুলার ভিজিট করুন আমাদের ওয়েরসাইট এবং জয়েন করুন ফেসবুকে।

Leave a Comment