কোরিয়া যেতে কি কি লাগে । কোরিয়া ভিসার ধরন সমূহ

কোরিয়া যেতে কি কি লাগে আপনি কি জানতে চান? আপনি কি কোরিয়া দেশে যেতে চান? পরিবারে সাছন্দ ইনকামের জন্য কোরিয়া যেতে চাচ্ছেন? জানতে চাচ্ছেন বাংলাদেশ থেকে কোরিয়া যেতে কি কি লাগে এবং ভিসা পেতে হলে কি করতে হবে? মোট কত টাকা খরচ, কোথায় আবেদন করতে হবে, কি কি লাগবে সব বিষয়ে? 

কোরিয়া বিশেষ করে দক্ষিন কোরিয়া সারা বিশ্বে বেশ জনপ্রিয় একটি দেশ হিসেবে পরিচিত। অনেক আগে থেকেই বাংলাদেশী নাগরিকরা দক্ষিন কোরিয়া নামক এই মুক্ত বাণিজ্যিক দেশে বিভিন্ন কারণে ভ্রমন করে আসছেন। ভিন্ন উদ্দেশ্যে আলাদা আলাদা ভিসা নিয়ে এই দেশে প্রতিনিয়ত ভ্রমণ করছেন হাজার হাজার বাঙালী নাগরিক।

আজকে আমরা জানবো, কোরিয়া যেতে কি কি লাগে, অর্থাৎ কোরিয়া যাওয়ার জন্য ভিসা সম্পর্কিত সকল তথ্য জানবো এই পোস্টে। জানবো, কোরিয়া যাওয়ার সকল ভিসার ধরন এবং কোন ভিসায় কত টাকা খরচ হবে সেই সম্পর্কে বিস্তারিত। চলুন জেনে নেওয়া যাক কোরিয়া যেতে কি কি লাগে জেনে নেওয়া যাক এই বিষয়ে আদ্দপান্থ।

Table of Contents

কোরিয়া যেতে যেসব ভিসা পাওয়া যায় তার ধরন, সময় ও মেয়াদ

কোরিয়া যেতে কি কি লাগে ও কোরিয়ান ভিসার ধরন সমূহ
কোরিয়া যেতে কি কি লাগে ও কোরিয়ান ভিসার ধরন সমূহ

দক্ষিণ কোরিয়া যেতে সাধারণত চার ধরনের ভিসা দেওয়া হয়। এই চার ধরনের ভিসার মধ্যে আপনার যে ধরনের ভিসা দরকার সেটি নিয়ে আপনি কোরিয়া যেতে পারবেন।

এই চার ধরনের ভিসা প্রসেসিং এর সময় এবং ভিসার মেয়াদ কাল ভিন্ন ভিন্ন হয়ে থাকে।

চলুন জেনে নেওয়া যাক, দক্ষিণ কোরিয়ার ভিসার ভিন্নতা অনুযায়ী সকল ভিসা গুলোর প্রসেসিং এর  সময়কাল এবং ভিসার মেয়াদকাল সম্পর্কে বিস্তারিত সকল তথ্য।

দক্ষিন কোরিয়া স্টুডেন্ট ভিসা করতে কি কি লাগে

কোরিয়া স্টুডেন্ট ভিসা করতে সর্বপ্রথম মেয়াদ থাকা একটি পাসপোর্ট থাকতে হবে। স্টুডেন্ট ভিসা প্রসেসিং সম্পন্ন হতে ৫ থেকে ১০ দিন সময় লাগে থাকে। স্টুডেন্ট ভিসার মেয়াদ কাল ৩ থেকে ৬ মাস হয়ে থাকে। 

কোরিয়া যেতে কি কি লাগে যার মধ্যে সহজে ভিসা পাবার উপায় হচ্ছে আপনি যদি স্টুডেন্ট হন।

কোরিয়া দেশে স্টুডেন্ট ভিসা করতে একক প্রবেশের ক্ষেত্রে চার হাজার টাকার মতো লেগে থাকে। এটি ৯০ দিন পর্যন্ত ভিসার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। এবং ৯০ দিনের বেশি ভিসার মেয়াদ সম্পন্ন ভিসা করতে ছয় হাজার টাকা বা তার কিছু কম বেশি টাকা খরচ পড়ে।

কিভাবে উপস্থাপনা শুরু করতে হয়?

স্টুডেন্ট ভিসায় এক সাথে দুই জনে বা ডাবল ভিসায় দক্ষিণ কোরিয়া যেতে ষাট হাজার টাকা  লেগে থাকে। আর মাল্টিপল- এন্ট্রি ভিসা করতে ৯ হাজার টাকার মতো লেগে থাকে। 

তবে, এই টাকার পরিমাণ কম বেশি হতে পারে। কারণ এটি সাধারণত ডলারে হিসাব করতে হয়। আর ইন্টারন্যাশনাল মার্কেটে ডলারের দাম অনুযায়ী এটি সামান্য কম বেশি হয়ে থাকে।

কোরিয়া স্টুডেন্ট ভিসায় যেতে কি কি ডকুমেন্ট লাগে?

পাসপোর্ট: একটি বৈধ পাসপোর্ট থাকতে হবে। এবং এটির মেয়াদ মিনিমাম ৩০ দিন বাকি থাকতে হবে। এছাড়াও অন্তত পাসপোর্ট বই এর দুটি অব্যবহৃত বা ফাঁকা পৃষ্ঠা থাকতে হবে।

এছাড়াও কোরিয়া যেতে কি কি লাগে এবং যে সকল বিষয় গুলি লক্ষ্য রাখবেন জেনে নিন।

ভিসা আবেদন পত্র: তারিখ সহ স্বাক্ষরিত একটি যথাযথ ভাবে পূরণ করা ভিসা আবেদন পত্র সঙ্গে থাকতে হবে। 

ফটো স্পেসিফিকেশন: ৩৫ মি. মি x ৪৫ মি. মি আকারের ছবি থাকতে হবে। ছবি গুলো ৬ মাস এর মধ্যে তোলা এবং ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড সাদা হতে হবে।

কভার লেটার: আবেদন কারীর সম্পূর্ণ বিবরণ থাকবে। তার সাথে পাসপোর্ট এর বিস্তারিত বিবরণ এবং দক্ষিণ কোরিয়া ভ্রমণ এর জন্য বিশদ বিবরণ থাকতে হবে। স্টুডেন্ট এর ব্যয় কারা বহন করবে তার বিবরন উল্লেখ করে একটি কভারিং লেটার তৈরী করতে হবে।

তালিকা ভুক্ত নিশ্চিতকরণ: আপনি যেই বিশ্ববিদ্যালয় এ অধ্যয়ন করতে চান সেখানে গ্রহণ যোগ্যতা পত্রসহ, কিন্তু সীমাবদ্ধ নয়, মনোনীত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এর সকল তথ্য উল্লেখ এবং সাথে সংগ্রহ করতে হবে।

  • এছাড়াও টিউশন ফি এর পেমেন্ট বিষয়ে ডকুমেন্ট থাকতে হবে।
  • একাডেমিক ডকুমেন্ট থাকতে হবে।
  • আর্থিক অর্থ প্রদানের বিষয়ে উল্লেখ থাকতে হবে।
  • স্বাস্থ্য পরিক্ষায় সাকসেস হওয়ার সার্টিফিকেট থাকতে হবে।
  • জন্ম নিবন্ধন এর আসল কপি থাকতে হবে।
  • পুলিশ ক্লিয়ারেন্স এর আসল কপি থাকতে হবে।
  • আবাসন বা স্থায়ী এবং বর্তমান ঠিকানা উল্লেখ থাকতে হবে।

দক্ষিন কোরিয়া যেতে টুরিস্ট ভিসা করতে কি কি লাগে

দক্ষিন কোরিয়া যেতে টুরিস্ট ভিসা করতে কি কি লাগে
দক্ষিন কোরিয়া যেতে টুরিস্ট ভিসা করতে কি কি লাগে

কোরিয়া যেতে কি কি লাগে এর মধ্যে যা জানা জরুরী তা হচ্ছে টুরিস্ট ভিসায় কোরিয়া যেতে ভিসা করতে স্বাভাবিক ভাবে ৫ থেকে ৮ দিন সময় লেগে থাকে।

আর টুরিস্ট ভিসায় মেয়াদ কাল থাকে ৩০ থেকে ৯০ দিন পর্যন্ত।  একক ভিসায় যেতে হলে ভিসা করতে ৯ হাজার টাকা লাগবে। এবং এই ভিসার মেয়াদ হবে ৯০ দিন বা তিন মাস পর্যন্ত দেয়া হয়।

অন্যদিকে একক ভিসায় ৯০ দিনের বেশি মেয়াদে কোরিয়া যেতে চাইলে আপনাকে ভিসা করতে ছয় হাজার টাকা লাগবে।

এবং ডাবল-এন্ট্রি ভিসা করতে ৯ হাজার টাকা, এবং মাল্টিপল-এন্ট্রি ভিসা করতে হচ্ছে ৬০ হাজার টাকার মতো খরচ করতে হবে আপনাকে।

সাংস্কৃতিক উৎসব বলতে কি বুঝায়?

টুরিস্ট ভিসায় কোরিয়া যেতে কি কি লাগে

কোরিয়া যেতে অন্তত ৩০ দিন মেয়াদ সম্পন্ন বৈধ একটি পাসপোর্ট থাকতে হবে। সাক্ষরিত এবং পূরণকৃত ভিসা আবেদন পত্র থাকতে হবে। ৩৫ মি. মি x ৪৫ মি. মি মাপের রঙিন ছবি যার ব্যাক্রাউন্ড সাদা এমন ছবি লাগবে।

স্বাস্থ্য পরিক্ষায় পাশ করা স্বাস্থ্য মূল্যায়ন ডকুমেন্ট লাগবে। জন্মনিবন্ধন এর আসল কপি লাগবে। লাগবে হচ্ছে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স এর সার্টিফিকেট। আবাসনের বিস্তারিত বিবরন থাকতে হবে। আইডেন্টিটি ডকুমেন্ট থাকতে হবে।

দক্ষিন কোরিয়া ফ্যামিলি ভিসা করতে কি কি লাগে

সাধারণত ৫ থেকে ১০ দিনের মধ্যে ফ্যামিলি ভিসায় কোরিয়া যেতে ভিসা প্রসেসিং সম্পন্ন হয়ে যায়।

এবং এই ভিসার মেয়াদ সাধারণত ৩ থেকে ৬ মাস হয়ে থাকে।

উপরে উল্লেখিত একক কোরিয়ান ভিসার জন্য বেদন করতে যে সকল তথ্য লাগবে, ফ্যামিলি ভিসায় কোরিয়া যেতে ভিসা ফ্যামিলি সকলেরও একই তথ্য প্রদান করতে হবে।

তবে ফ্যামিলি ভিসায় কোরিয়া যেতে বাচ্ছা সাথে থাকলে তাদের জন্ম নিবন্ধন ও মা বাবার আইডি কার্ড ও অন্যান্য ডকোমেন্ট থাকা জরুরী।

কোরিয়া যেতে কি কি ডকুমেন্ট লাগে

কোরিয়া যেতে অন্তত ৩০ দিনের মেয়াদ সম্পন্ন বৈধ পাসপোর্ট থাকতে হবে। এছাড়াও কোরিয়ায় ভ্রমণ করতে আপনার আরও কিছু প্রয়োজনীয় ডকোমেন্ট থাকা জরুরী।

কোরিয়া যেতে কি কি লাগে? সেগুলি হচ্ছে –

  • পাসপোর্ট বইয়ের দুইটি পৃষ্ঠা ফাঁকা থাকতে হবে।
  • ভিসা আবেদন পত্র থাকতে হবে।
  • ফটো বা ছবি থাকতে হবে।
  • কভার লেটার থাকতে হবে।
  • জন্মনিবন্ধনের আসল কপি থাকতে হবে।
  • পুলিশ ক্লিয়ারেন্স এর আসল কপি থাকতে হবে।
  • স্বাস্থ্য মূল্যায়ন এবনফ আইডেন্টিটি ডকুমেন্টস থাকতে হবে।
  • এবং সর্বশেষ বিয়ের ডকুমেন্ট লাগবে।

দক্ষিন কোরিয়া বিজনেস ভিসায় যেতে কি কি লাগে

৫ থেকে ৮ দিনের মধ্যে কোরিয়া ভ্রমণ করতে চাইলে বিজনেস ভিসা হয়ে যায়।

কোরিয়া যেতে বিজনেস ভিসা করতে কি কি লাগে তা এখানে জানতে পারবেন।

এই ভিসার মেয়াদ থাকে ৩০ থেকে ৯০ দিন বা তিন মাস পর্যন্ত।

এবং ৯০ দিনের একক ভিসা করতে খরচ হয় চার হাজার আকার মতো। আর ৯০ দিনের বেশি একক ভিসায় খরচ হয় হচ্ছে ছয় হাজার টাকা।

উৎসব ভাতা প্রদানের নিয়ম

ডাবল-এন্ট্রি ভিসায় ষাট হাজার এবং মাল্টিপল-এন্ট্রি ভিসায় নয় হাজার টাকা খরচ হয়।

দক্ষিন কোরিয়া বিজনেস ভিসায় যেতে কি কি লাগে

মিনিয়াম ৩০ দিন মেয়াদ সম্পন্ন এবং অন্তত দুইটি পৃষ্ঠা ফাঁকা সম্পন্ন বৈধ পাসপোর্ট থাকতে হবে।

কোরিয়া যেতে কি কি লাগে এই প্রশ্নে আপনাকে বলবো যে, আপনার কাছে ভিসা আবেদনের অরজিনাল কপি থাকতে হবে। ৩৫ মি. মি x ৪৫ মি. মি সাইজের ছবি থাকতে হবে।

কভার লেটার যুক্ত থাকতে হবে। জাতীয় পরিচয় পত্র বা ন্যাশনাল আইডি কার্ড থাকতে হবে। পুলিশ ক্লিয়ারেন্স এর আসল কপি থাকতে হবে। স্বাস্থ্য মূল্যায়নের কপি থাকতে হবে। বিজনেস কার্ড এবং ডকুমেন্ট থাকা আবশ্যকীয়।

কোরিয়ার ভিসা সম্পর্কে সাধারণ জিজ্ঞাসা । FAQS

কোরিয়া যেতে কি কি লাগে?

কোরিয়া যেতে আপনার কাছে সর্বপ্রথম মেয়াদ থাকা একটি পাসপোর্ট থাকতে হবে। এই পোস্টে উল্লেখিত সকল প্রকার ডকমেন্ট দিতে হবে, এবং ভিসা প্রসেসিং সম্পন্ন হতে ৫ থেকে ১০ দিন সময় লাগে থাকে।

আমি কীভাবে দক্ষিণ কোরিয়ায় ৯০ দিন এর বেশি থাকতে পারি?

ভিসা করার সময় ৯০ দিনের বেশি মেয়াদ সম্পন্ন ভিসা করতে হবে। তবেই হচ্ছে আপনি বৈধ উপায়ে ৯০ দিনের বেশি কোরিয়া থাকতে পারবেন। 

বাংলাদেশিদের জন্য কি দক্ষিণ কোরিয়ার ভিসা খোলা আছে?

হ্যাঁ। করোনা চলাকালিন অনেক দিন বন্ধ থাকলেও এখন স্বাভাবিক এবং চলমান আছে। 

দক্ষিণ কোরিয়া কি কাজের জন্য ভালো?

এই দেশে সব ধরনের কাজ এবং চাকরী এভেইলেবেল। তবে এজন্য আপনাকে আপনার পছন্দ এবং যোগ্যতা অনুযায়ী যেকোনো কাজ করতে পারবেন।

কোরিয়া যাওয়া নিয়ে সর্বশেষ

আজকে আমরা জানতে পেরেছি কোরিয়া যেতে কি কি লাগে এবং কয় ধরনের ভিসায় আপনি কোরিয়া যেতে পারি।

আশা করি আমি জানতে পেরেছি কোন ভিসার খরচ কত টাকা লাগে এবং নিয়ম সম্পর্কে। জেনেছি কোন ভিসায় কি কি কাগজপত্র দরকার হয়ে।

আশা করছি কোরিয়া যেতে কি কি লাগে এই বিষয়ে আর কোনও অজানা কিছু থাকবেনা। এরপরেও কিছু জানতে চাইলে কমেন্ট করে জানান। আমাদের প্রতিনিধি আপনার কমেন্টের উত্তর দিবেন।

আমাদের লেখা নিয়মিত পড়তে আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করুন। চোখ রাখুন আমাদের ফেসবুক পেজে।

Leave a Comment