উৎসব ভাতা প্রদানের নিয়ম | উৎসব ভাতা কি?

সুধী পাঠকবৃন্দ আজকের এই আর্টিকেলটি উৎসব ভাতা প্রদানের নিয়ম কি? কিভাবে অথবা কোন নীতিমালা অনুসারে উৎসব ভাতা প্রদান করা হয় সে সম্পর্কে বিস্তারিত জানানোর জন্য আজকের এই আর্টিকেলটি গঠন করা হয়েছে।

মূলত আমাদের দেশে নানান ধরনের উৎসবের সময় বেতন কিংবা পাওনা টাকা নিয়ে কিছু সংশয় দেখা দেয়। 

যার কারণে বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক গৃহীত একটি নিয়ম অনুসারে বর্তমান সময়ে উৎসবের সময় ভাতা প্রদান করা হয়ে থাকে। আজকে উৎসব ভাতা সম্পর্কে জানারনোর জন্য আপনাদের উদ্দেশ্যে এই আর্টিকেলটি গঠন করা হয়েছে।

উৎসব ভাতা প্রদানের নিয়মাবলী কি?

উৎসব ভাতা প্রদানের নিয়ম, উৎসব ভাতা কি
উৎসব ভাতা প্রদানের নিয়ম | উৎসব ভাতা কি

সরকারি চাকরিতে যোগদানের পর উৎসব ভাতা প্রাপ্তির ক্ষেত্রে কিছু নিয়ম এবং বিধান রয়েছে যেটি বর্তমান সময়ে সকল দপ্তরেই পালন করা হয়ে থাকে।

 সেগুলো হচ্ছে-

  • আগের মাসের সমপরিমাণ বেতন প্রদান এবং মূল বেতনের সমান পরিমাণ বেতন প্রদান।
  • উৎসবের সময় মাস পূরণ না হলে চলতি মাসে বেতন যতদিন কর্ম দিবস হয়েছে উৎসব দিনের পূর্ব পর্যন্ত সে বেতন প্রদান।
  • ধরা যাক, উৎসবের 14 দিন পূর্বে কোন ব্যক্তি চাকরিতে যোগদান করেছে তবে সে ব্যক্তি ও 14 দিনের মূল বেতনের সমপরিমাণ উৎসব ভাতা পাবে।
  • বাংলাদেশ শ্রম আইন অনুসারে দেশের প্রতিটি প্রতিষ্ঠান এবং শ্রমিক কারখানায় নিয়োজিত যত শ্রমিক রয়েছে তাদের মধ্যে নিরবিচ্ছিন্ন ভাবে যারা এক বছর চাকরির বয়স পূর্ণ করেছে তাদের সকলকেই বছরে দুইটি উৎসব ভাতা প্রদান করতে হবে। 
  • প্রাতিষ্ঠানিক কর্তৃপক্ষ শ্রমিক, কর্মচারী, কর্মকর্তাদের ঈদুল ফিতর ঈদুল আযহা এই দুই উৎসবে তাদের বেতনের সমপরিমাণ ভাতা প্রদান করবেন।
  • শুধুমাত্র তারাই উৎসব ভাতার জন্য গণ্য হবেন যাদের চাকরির বয়স ঈদের দিন সহ এক বছর পূর্ণ হয়েছে।
  • যদি উৎসব ভাতা গণনা করা হয়, সে ক্ষেত্রে সেটি ঈদের দিন পর্যন্ত গণ্য করা হয়।
  • শুধুমাত্র মুসলিমরা ঈদ পালন করে বলে তাদের জন্য ভাতা দেয়া হবে এমনটি নয়। 
  • বাংলাদেশে বসবাসকারী সকল ধর্মানুসারী মানুষদের জন্য এই উৎসবের নিয়ম একই বলে বিবেচ্য হবে।

উৎসব ভাতার সারসংক্ষেপ 

সুপ্রিয় পাঠকগণ মূলত উৎসব ভাতা হচ্ছে আমরা বর্তমান সময়ে যে সকল খুশির দিন নিজ নিজ ধর্ম অনুসারে পালন করি যেমন ঈদ কিংবা পূজা পালন করে থাকি এগুলোকে বুঝায়।

এই সময়ে যারা কোন প্রতিষ্ঠান কিংবা কারখানার কর্মকর্তা কর্মচারী হিসেবে নিয়োজিত থাকেন তাদের জন্য উৎসব ভাতার একটি নির্দেশনা রয়েছে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে। 

উৎসব ভাতা প্রদানের নিয়ম ও নিয়মাবলী গুলো আপনাদের সামনে উপরে আমরা উল্লেখ করেছি।

তবুও আমরা আরো কিছু সারসংক্ষেপ তো কথা আপনাদের উদ্দেশ্যে বলছি। মূলত এটি এমন একটি ভাতা যেখানে আপনার কাজের বয়স থাকতে হবে কমপক্ষে এক বছর।

আবার আপনার কাজের বয়স যদি এক বছর নাও হয় তাহলে আপনি যে সময়ে কাজে যুক্ত হয়েছেন সে সময় থেকে কিছুদিন পর যদি কোন উৎসব চলে আসে তাহলে আপনাকে চলতি মাসের পুরো বেতন কতৃপক্ষ প্রদান করবে সেটি উৎসব ভাতা হিসেবে। 

আমরা আশা করছি বিষয়টি আপনারা বুঝতে পেরেছেন। শুধুমাত্র কোন নির্দিষ্ট ধর্মাবলম্বী লোক জন এ ভাতা গ্রহণ করবে না। সকল ধর্মের লোকেরা এ ভাতার জন্য বিবেচ্য হবে।

ই মেইল পাঠানোর নিয়ম কি?

উৎসব ভাতা কি?

বাংলাদেশে বসবাসকারী সকল ধর্মাবলম্বীদের বিশেষ উৎসব দিনের জন্য প্রদান করা ভাতাকেই উৎসব ভাতা বলা হয়ে থাকে।

উপসংহার 

প্রিয় পাঠকগণ আজকের এই আর্টিকেলের মূল উদ্দেশ্য ছিল উৎসব ভাতা প্রদানের নিয়ম কি। আশা করছি আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আপনারা উৎসব ভাতা প্রদানের নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন।

এবং আমরা আরো আশাবাদী যে আপনাদের আজকের এই আর্টিকেলটি ভালো লেগেছে।  আপনাদের যদি আজকে এই আর্টিকেলটি ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই আমাদেরকে কমেন্টের মাধ্যমে জানাবেন। 

এবং আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় এই যে আপনাদের যদি এই আর্টিকেল সম্পর্কিত কোন প্রশ্ন মতামত থাকে সেটি আপনারা আমাদেরকে কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে পারেন। 

আমরা আপনাদের সঠিক ও গঠন মূলক উত্তর দিতে সম্পূর্ণ চেষ্টা করবো।

আমাদের ওয়েব সাইটে প্রকাশিত সকল আর্টিকেল ফেসবুক পেইজে পেতে আমাদের ফেসবুক পেজ লাইক করুন।

Leave a Comment